শাকিবকে নিয়ে কলকাতায় আর ছবি নির্মান হবে না!

টলিউড এবং ঢালিউডের বিখ্যাত প্রযোজনা সংস্থা এসকে মুভিজ বাংলাদেশ থেকে তাদের ব্যবসা গুটিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এমনকি বাংলাদেশের শীর্ষ নায়ক শাকিব খানকে নিয়ে তারা যৌথ প্রযোজনা কিংবা কলকাতার লোকাল বাজারেও কোন ছবি বানাবে না। ৩ অক্টোবর (বুধবার) বিকেলে ছায়াছন্দ অনলাইনের কাছে এই তথ্য স্বীকার করেছেন অশোক ধানুকা নিজেই। তিনি এই প্রতিবেদকের সঙ্গে মেসেঞ্জার কলে বলেছেন বাংলাদেশ থেকে ব্যবসা গুটিয়ে নেওয়ার নেপথ্য কথা।

শুরুতেই অশোক ধানুকা বলেন, আমি নব্বই দশকের মাঝামাঝি থেকে ঢাকার সাথে যৌথ প্রযোজনার ছবি করছি। স্বামী কেন আসামী ছবির মাধ্যমে ঋতুপর্ণা এবং চাঙ্কি পাণ্ডে কে বাংলাদেশের ছবিতে আমিই কাজ করিয়েছিলাম। তখন বাংলাদেশের ফিল্ম কলকাতার চেয়ে অনেক ভালো ছিলো। ব্যবসাও ভালো ছিলো। কিন্তু এখন ব্যবসা নেই। উল্টো আরো নানান ঝমেলা করা হয় একটি ছবি রিলিজ করতে গেলে। এখন এখানে টাকা ছাড়া কোন কাজ হয় না। সব কাজে সবাইকে টাকা দিতে হয়। নইলে অহেতুক বাধার সৃষ্টি করা হয়। আবার আমদানি কিংবা যৌথ প্রযোজনার ছবি বাংলাদেশে রিলিজ করতে আইন আদালত করতে হয়। এভাবে তো আর্ট কালচার হয় না। তাই আমি বাধ্য হয়েই বাংলাদেশ থেকে এসকে মুভিজের ব্যবসা গুটিয়ে নিচ্ছি। যৌথ প্রযোজনার কোন ছবি আর করবো না। তেমনি শাকিব খানকে নিয়েও আর কোন ছবি করবো না আমি, হোক সেটা যৌথ প্রযোজনা কিংবা কলকাতার লোকাল মার্কেট এর।

শাকিব খানকে নিয়ে ছবি না করার সিদ্ধান্ত নিলেন কেন? এই প্রশ্নের উত্তরে কলকাতার চলচ্চিত্রের প্রভাবশালী প্রযোজক অশোক ধানুকা বলেন, তার অতি পারিশ্রমিকের কারণে তার ব্যাপারে আমি আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছি। সে আমার নতুন একটি ছবিতে ৬০ লাখ টাকা পারিশ্রমিক চেয়েছে। এতো টাকা দিয়ে তাকে নিয়ে ছবি বানালে সেই টাকা ফেরত পাওয়া যাবে না। তাছাড়া কলকাতায় শাকিবের মার্কেট ভ্যালু, স্যাটেলাইট ভ্যালু নেই। তাকে আমি ১৫ লাখ টাকা দিয়ে ছবিতে নিয়ে কলকাতায় পরিচিত করেছিলাম। শিকারী, নবাব, ভাইজান এলো রে ছবি দিয়ে আমিই তাকে আন্তর্জাতিক তারকা বানানোর চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু অত টাকা পারিশ্রমিক পাওয়ার তারকা সে কলকাতায় হতে পারেনি। 

শোনা যাচ্ছে, শাকিব নাকি আপনাকে শিডিউল দিতে পারছেন না বলে আপনি তাকে নিয়ে ছবি বানাচ্ছেন না? বাংলাদেশের একটি গণমাধ্যমে শাকিব খান নিজেই বলেছেন শ্রাবন্তী আর মিমিকে নায়িকা করে শাকিবকে নিয়ে দুটি ছবি করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তিনি নাকি শিডিউল দিতে পারছেন না? এই প্রশ্নের উত্তরে অশোক ধানুকা বলেন, একদম বাজে কথা। ভাইজান এলো রে ছবিটি রিলিজের আগেই তার সাথে কথা হয়েছিল তাকে আর শ্রাবন্তীকে নিয়ে ব্যাক টু ব্যাক আরেকটি ছবি বানানো হবে। কিন্তু ভাইজান এলো রে ছবিটি ভালো ব্যবসা করার কারণে শাকিব আমার কাছে ৬০ লাখ টাকা পারিশ্রমিক চাইলো। সে একবার ভাবলো না যে, কলকাতায় তার এতটা মার্কেট ভ্যালু তৈরি হয়েছে কি না। আমি স্পষ্ট করে বলছি – শিডিউলগত কারণ নয়, তার উচ্চ পারিশ্রমিকের কারণে আমিই তাকে নিয়ে ছবি বানানোর পরিকল্পনা বাদ দিয়েছি। শোনা যাচ্ছে, ভেঙ্কটেশ ফিল্মস ও নাকি শাকিবকে আর ছবিতে নিচ্ছে না।

তাহলে কী কলকাতায় শাকিব এখন ছবিহীন হয়ে পরছে? অশোক ধানুকা বলেন, নয় তো কী? অত টাকা দিয়ে কে তাকে ছবিতে নেবে?? অশোক ধানুকা জানান, তার প্রযোজিত ছবি তুই শুধু আমার সম্প্রতি কলকাতায় রিলিজ হয়েছে। মাহি সোহম অঙ্কুশ অভিনীত এই ছবিটি ঢাকায় মার্কেটিং করার পর এসকে মুভিজ আনুষ্ঠানিক ভাবে বাংলাদেশ থেকে তাদের ব্যবসা গুটিয়ে নেবে। তবে এখনই তারা ঢাকার মগবাজারে অবস্থিত অফিসটি ছাড়ছেন না। যৌথ প্রযোজনার ছবি না বানানো প্রসঙ্গে অশোক ধানুকা আরো বলেন, যৌথ প্রযোজনার ছবি বানানোর যে, নতুন নীতিমালা করা হয়েছে, তাতে করে যৌথ প্রযোজনার ছবি বানানো জটিল ও কঠিন হয়ে পরেছে। এত চাপ নিয়ে তাই ছবি বানানোর দরকার কী? আর বাংলাদেশে ছবি প্রদর্শনের ক্ষেত্রে জাজ মাল্টিমিডিয়ার একচ্ছত্র কর্তৃত্ব অন্যায় পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। তারা আমার ছবি চালাতে চায় না। অন্যান্য প্রযোজকরা তার কাছে জিম্মি। আবার বাংলাদেশে চলচ্চিত্র কেন্দ্রিক অনেকগুলো সংগঠন রয়েছে, তারাও ছবি রিলিজ ঠেকানোর জন্য উঠে পড়ে লেগে যায়। আমার কষ্টের টাকা দিয়ে ছবি বানিয়ে কেনোই বা এতো চাপ নেবো আর কেনোই বা লাগাতার লস করে যাবো। তারচে ভালো কলকাতার ছবি বানাবো,ওখানেই চালাবো।

Check Also

অপুর্ব কে রেখে অন্তুর ভালোবাসায় মেহজাবিন?

মিডিয়া ভূবন২৪- আগামী ফেব্রুয়ারী বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে  ভালোবাসার নাটক নির্মাণ করেছেন বি ইউ শুভ …