বিজ্ঞাপন কম দেখালে চ্যানেলমুখী হবে দর্শক দেশি-আনজাম মাসুদ

anjam-masudবিটিভির একটি জনপ্রিয় অনুষ্ঠানের নাম ‘আজকাল’। সবার পছন্দের এই অনুষ্ঠানটির সঞ্চালক ছিলেন আনজাম মাসুদ। নন্দিত এক নির্মাতা তিনি। ম্যাগাজিন অনুষ্ঠানের বাইরে আর কোনো অনুষ্ঠান পরিচালনা বা সঞ্চালনা করেন না তিনি। বর্তমানে তারই পরিকল্পনা, গ্রন্থনা ও উপস্থাপনায় বিটিভিতে প্রচারিত হচ্ছে আরেক দর্শকপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘পরিবর্তন’। কর্মজীবনের উনিশ বছর ধরে তিনি ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান সঞ্চালন করে আসছেন। তার সঙ্গে কথা বলে লিখেছেন মাহবুব আলম

‘আজকাল’, ‘আজ কাল পরশু’ এবং ‘এক দুই তিন’সহ বেশ কয়েকটি দর্শকনন্দিত ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান করেছেন তিনি। তার মনে, উপস্থাপন একটি শিল্প আর এই শিল্পমাধ্যমে কাজ করতে হলে তাকে অবশ্যই শুদ্ধ উচ্চারণে কথা বলা শিখতে হবে। প্রসঙ্গ ক্রমে তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশে এখন অনেক টেলিভিশন চ্যানেল আছে কিন্তু বেশির ভাগ চ্যানেলে কোনো ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান দেখা যায় না। কারণ হিসেবে তিনি ব্যাখ্যা করেন একটি ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান নির্মাণ করতে আমাদের অনেক পরিশ্রম করতে হয় এবং সেক্ষেত্রে অনুষ্ঠানের বাজেটও একটি বিষয়। নির্মাতারা পরিশ্রম ও পরিকল্পনায় সময় বাঁচানোর জন্য ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান করেন না। তারা নির্মাণের ক্ষেত্রে নাটককে বেছে নেন। কারণ একটি নাটক নির্মাণ করতে তেমন কোনো বেগ পোহাতে হয় না। ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান নির্মাণ একটি ব্যয় সাপেক্ষ ও সময় সাপেক্ষ ব্যাপার হওয়া সত্ত্ব্বেও আপনি কেন শুধু ম্যাগজিন অনুষ্ঠান নির্মাণ করেন? তিনি বলেন, ‘আমি যে কাজটি করতে চাই, সেটা যেন শুধুই কাজ না হয়। কেননা একটি ম্যাগাজিন অনুষ্ঠানে সব রকমের এবং সব বয়সের ও সব শ্রেণির দর্শকের জন্য প্রোগ্রাম থাকে। বিশেষত, এ ধরনের অনুষ্ঠানে সমাজসচেতনতামূলক অনুষ্ঠান বেশি থাকে। যেগুলো দেখে দর্শকরা বিনোদন পায় এবং সমাজ সম্পর্কে কিছুটা হলেও Anjam mmসচেতন হয়। ম্যাগাজিন অনুষ্ঠানে দর্শক সব রকমের স্বাদ পায় বলে তাদের পছন্দের তালিকার প্রথমেই থাকে ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠান জনপ্রিয়তার এই সফলতা যেমন আগের সবগুলোতে পেয়েছি, তেমনি আমার নতুন অনুষ্ঠান ‘পরিবর্তন’ থেকেও পাচ্ছি। আর এ ধরনের অনুষ্ঠান সবচেয়ে বেশি করে থাকে বাংলাদেশ টেলিভিশন (বিটিভি)।’ অনুষ্ঠান চলাকালীন বিজ্ঞাপন ও ম্যাগাজিন অনুষ্ঠানের ব্যয় সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা যারা অনুষ্ঠান নির্মাণ করি বা সঞ্চালন করে থাকি তারা মনে করি, বিজ্ঞাপন হলো একটি অনুষ্ঠানের হূদপিণ্ড। বিজ্ঞাপন ছাড়া একটি অনুষ্ঠান হয় না। অর্থাত্ বিজ্ঞাপন ছাড়া অনুষ্ঠান চালানো কোনো টিভি চ্যানেলের পক্ষেই সম্ভব না। সেক্ষেত্রে আমি মনে করি, বিজ্ঞাপনের প্রচার মূল্য না কমিয়ে বরং আরও বৃদ্ধি করা উচিত। এক্ষেত্রে টেলিভিশন মালিকদের যে সংগঠন আছে তাদেরকেই উদ্যোগ নিতে হবে। তাদেরকে সরকারের সঙ্গে বসে বিজ্ঞাপন বিষয়ক একটি নীতিমালা করতে হবে, যাতে বিজ্ঞাপনের প্রচার মূল্য আরও বাড়ানো যায়।’ আনজাম মাসুদ মনে করেন অনুষ্ঠান চলাকালে বিজ্ঞাপন কম দেখালে দর্শক দেশি চ্যানেলমুখী হবে আরও বেশি।

Check Also

Kishor

কিশোর কনার নতুন গান ইউটিউবে ‘খুশির দিন’

ইউটিউবে প্রকাশ হয়েছে এই প্রজন্মের জনপ্রিয় কন্ঠ শিল্পী কনা ও কিশোরের কণ্ঠে গাওয়া নতুন গান …