Home / মিউজিক / আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল’র বিদায় অনুষ্ঠান ‘তারকা’ শূন্য!

আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল’র বিদায় অনুষ্ঠান ‘তারকা’ শূন্য!

মিডিয়া ভুবন২৪-আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল। দেশের গানের পরই সবচেয়ে বড় অবদান তার চলচ্চিত্রে। জীবদ্দশায় তিনি কথা আর সুর বুনেছেন ৩০০টিরও বেশি সিনেমায়। এই সংগীত পরিচালকের তৈরি শতাধিক জনপ্রিয় গান যাদের ঠোঁটে দর্শকরা দেখেছেন সিনেমার পর্দায়, সেই নায়ক-নায়িকারা মূলত কেউই আসেননি তাকে শেষ বিদায় জানাতে, বিএফডিসিতে!

যা বিস্ময়কর বলেই অবিহিত করেছেন উপস্থিত অনেকে।
আজ (২৩ জানুয়ারি) বেলা আড়াইটায় এই বরেণ্য সংগীত পরিচালক-গীতিকারের দ্বিতীয় জানাজা বিএফডিসিতে অনুষ্ঠিত হয়।
এরচেয়েও খারাপ অবস্থা ছিল এদিন বেলা ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত জাতীয় শহীদ মিনারের শেষ বিদায়ের আয়োজনে। সংগীতশিল্পী ও আমজনতার বাইরে নায়িকা কুমকুম ছাড়া চলচ্চিত্রের তেমন কেউ ছিলেন না সেখানে!
অন্যদিকে দুপুরের পর এফডিসিতে নায়ক বলতে উপস্থিত ছিলেন আলমগীর, রিয়াজ ও জায়েদ খান। ছিলেন সোহানুর রহমান সোহান, খোরশেদুল আলম খসরুসহ বেশ ক’জন পরিচালক-প্রযোজক। শহীদ মিনার থেকে এফডিসিতেও এসেছেন সংগীতশিল্পী তপন চৌধুরী, রবি চৌধুরী, শফিক তুহিন, মাহমুদ জুয়েল, কিশোর, সাব্বির, সংগীত পরিচালক শওকত আলী ইমনসহ অনেকেই।
চলচ্চিত্রের তারকাদের বিস্ময়কর অনুপস্থিতি প্রসঙ্গে সংগীতশিল্পী তপন চৌধুরী বলেন, ‘শহীদ মিনার না হলেও এফডিসিতে শিল্পীদের উপস্থিতি আরও থাকা উচিত ছিল। আমরা গানের মানুষরা প্রায় সবাই তার বাসা থেকে শহীদ মিনার হয়ে এফডিসিতেও যাওয়ার চেষ্টা করেছি। কিন্তু শেষ শ্রদ্ধায় অন্তত সম্মান জানাতে হলেও এফডিসিতে আসতে পারত নায়ক-নায়িকারা। এটা দুঃখজনক।’
এফডিসির জানাজায় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক নায়ক জায়েদ। তার বক্তব্য এমন, ‘আমি সবাইকে এসএমএস করেছি, ফোন করেছি। কেউ না এলে আমার কিছু করার নেই। এটা যার যার ব্যক্তিগত ব্যাপার।’

বিএফডিসির শেষ বিদায়ের অনুষ্ঠানে এমন ঘটনা আগেও বহুবার হয়েছে। শীর্ষ নায়ক শাকিব খানসহ অনেক তারকাই এতে অংশ নেয়নি। তবে জানাজায় অংশ নেওয়া অনেক মানুষদের মতে, এবারের বিষয়টি ছিল বেশ দৃষ্টিকটু।
এদিকে আজ (২৩ জানুয়ারি) বিকালে মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলকে দাফন করার কথা থাকলেও তা হতে দেরি হবে বলে জানা গেছে। কারণ মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বরাদ্দ কবরে দাফন না করে বুদ্ধিজীবীদের জন্য বরাদ্দ স্থানে সমাহিত করার অনুরোধ করেছেন প্রয়াতের পরিবার। এ কারণে নতুন করে কবর খনন হচ্ছে। সন্ধ্যার পরপর দাফন সম্পন্ন হবে। বিকাল সাড়ে পাঁচটা নাগাদ বিষয়টি বাংলা ট্রিবিউনকে জানিয়েছেন সংগীতশিল্পী সাব্বির।
২২ জানুয়ারি না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন প্রখ্যাত সংগীত পরিচালক, গীতিকার, সুরকার ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল। পরদিন আজ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে তাকে রাষ্ট্রীয়ভাবে সম্মান জানানো হয়। মরদেহ সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত সেখানে রাখা হয়। এ সময় বুলবুলের ছেলে মুনসহ উপস্থিত ছিলেন সংগীতশিল্পী খুরশীদ আলম, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসির উদ্দীন ইউসুফ, ম. হামিদ,  গীতিকার গাজী মাজহারুল আনোয়ার, কবির বকুল, প্রযোজক ইজাজ খান স্বপন, সংগীতশিল্পী সামিনা চৌধুরী, মনির খান, এসডি রুবেল, শফিক তুহিন, মুহিন, সাব্বির, কিশোর, মেহরাব, অভিনয়শিল্পী আজাদ আবুল কালাম, তানভীন সুইটি, পরিচালক চয়নিকা চৌধুরী, নায়িকা কুমকুমসহ অনেকে। এরপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর বেলা সোয়া দুইটায় মরদেহ নেওয়া হয় বিএফডিসিতে।

Check Also

লুৎফর হাসান এবার আয়না দিয়ে ঘর বেঁধেছি

মিডিয়া ভূবন২৪  : ‘ঘুড়ি তুমি কার আকাশে ওড়ো’ থেকে ‘খরচাপাতির গান।’ এর মাঝ খানে লুৎফর …