মুশফিকুর রহীম’কে স্যরি বলবেন আসিফ!

asif-l-rrrদিন শেষে ক্রিকেট একটি খেলাই। যতোই আবেগ-উত্তেজনা, অভিযোগ, ক্ষোভ থাকুক খেলা শেষে ব্যক্তিগত সম্পর্কের খাতিরে সবকিছু ভুলে যান খেলোয়াড়রা। ভুলে যান তাদের ভক্তরাও। এটাই খেলাধুলার স্বভাব।

তেমনি বিপিএলে চলতি আসরে অন্যতম দল বরিশাল বুলসের অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম ও দলটির ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর কণ্ঠশিল্পী আসিফ আকবরকে নিয়ে সৃষ্ট উত্তেজনাও ভুলে যাবেন সবাই সেটাই প্রত্যাশা ক্রিকেটপ্রেমীদের।

গতকাল থেকেই আসিফ-মুশফিক দ্বন্দ্ব নিয়ে অনেক আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে। তবে বিষয়টিকে স্বাভাবিক করতে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন আসিফ। মুশফিকের সঙ্গে নিজের একটি ছবি পোস্ট করে দেয়া সেই স্ট্যাটাসে তিনি নিজেকে জাতীয় দলের টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহীমের ফ্যান বলে দাবি করেন। তার কথায়, মুশফিক কষ্ট পেয়ে থাকলে সেজন্য স্যরি বলতেও আপত্তি নেই বলে মন্তব্য করেছেন বাংলা গানের যুবরাজখ্যাত গায়ক আসিফ।

তিনি গত বুধবার নিজের ভেরিফায়েড পেজে লেখেন, ‌‘আমার মরহুমা আম্মা আমাকে পাগলা ডাকতেন। আব্বা মারা যাওয়ার সাথে সাথেই উনার মুখ থেকে অস্ফুট স্বরে একটা শব্দ বেরিয়ে ছিলো- আমার পাগলটা চলে গেলো। আমার পাগলা ফ্যান গ্রুপ, পরিবার, বন্ধু-বান্ধবসহ যারা আমাকে চেনেন, তাদের দৃষ্টিতে আমি পাগলই। এ শব্দটাকে আমি ভালোবাসি, কারণ আমাকে যারা ভালোবাসেন তারাই আমাকে পাগল বলেন। বাংলাদেশের টেস্ট দলের গর্বিত অধিনায়ক  আমাকে এই নামেই ডেকেছে, এতে আমি একদম রাগ করিনি, কষ্টও পাইনি বরং খুশি।’

আসিফ আরো লিখেছেন, ‘মুশফিকুর রহীম- আমাদের প্রিয় মুশি দেশের ক্রিকেটের অপরিহার্য অংশীদার। ক্রিকেটপাগল বাংলাদেশ সব সময় মি. ডিপেন্ডেবলের ব্যাটের দিকে তাকিয়ে থাকে। কারো উপর ভরসা থাকলেই কেবল মাত্র এ ধরনের প্রত্যাশা করা যায়, মুশি ঠিক তাই। বাংলাদেশের ক্রিকেট মুশির কাছ থেকে আরো অনেক কিছু পাবে ইনশাআল্লাহ। আমি কোনোভাবে তাকে বিরক্ত করে দেশীয় ক্রিকেটের ক্ষতি করতে চাইনি। ক্রিকেটের প্রতি মুশির ডেডিকেশন নিয়ে প্রশ্ন তোলা হবে সম্পূর্ণভাবে অর্বাচীনের কাজ। আমার পোস্টে যা লিখেছি তা ছিল আমার ব্যক্তিগত মতামত, পর্যবেক্ষণ।’

আমার বাবা-মা মারা গেছেন আরো আগে। মুশির বাবা একজন ক্রিকেট লাভার পরহেজগার মানুষ, সে নিজেও একজন ধার্মিক মানুষ। কিছু কথার কারণে তৃতীয় কেউ আমাদের বাবা-মাকে গালি দিচ্ছে, এটা খুব পীড়াদায়ক। তবে আমার ফ্যানরা ভদ্রভাবেই ব্যাপারটা ডিল করেছে। মুশির প্রতি আমার কোনো রাগ নেই, আমি তাকে অনেক ভালোবাসি। দু-একদিনের মধ্যে আমি মুশির সাথে সেলফি তুলবো ইনশাআল্লাহ। যদি বেশি ভুল করে থাকি প্রয়োজনে সরাসরি স্যরি বলবো। সবাইকে বলতে চাই, এই বিষয়টা নিয়ে অনুগ্রহ করে ঠান্ডা থাকুন। মুশফিক আমাদের জাতীয় সম্পদ, সাধারণ নাগরিক হিসেবে তাকে আমরা সবাই ভালোবাসি। জয় হোক ক্যাপ্টেনের, জয় হোক ক্রিকেটের। ভালোবাসা অবিরাম…

Check Also

Kishor

কিশোর কনার নতুন গান ইউটিউবে ‘খুশির দিন’

ইউটিউবে প্রকাশ হয়েছে এই প্রজন্মের জনপ্রিয় কন্ঠ শিল্পী কনা ও কিশোরের কণ্ঠে গাওয়া নতুন গান …